• ঢাকা
  • বুধবার, ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৭ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ আপডেট : ৭ আগস্ট, ২০২০

শোকাবহ আগস্ট: দুর্গতদের পাশে থেকেই বঙ্গবন্ধু স্মরণের প্রত্যয়

অনলাইন ডেস্ক

শোকের মাস আগস্ট। সপরিবারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মম হত্যাকাণ্ডের মাস। ঠিক ৪৫ বছর আগে বাঙালির কপালে পিতৃহন্তারকের কলঙ্ক তিলক লেপনের মাস। সাড়ে চার দশক পরও আগস্ট এলে নিষ্ঠুরভাবে পিতা হারানোর শোকে মূহ্যমান হয় জাতি। চোখের জল, বিনম্র শ্রদ্ধা আর সোনার বাংলা গড়ার শপথ নিয়ে মাসব্যাপী জাতির পিতাকে স্মরণ করা হয়। এবারের শোকের মাস জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ হওয়ায় নানা অনুষ্ঠান-আয়োজনে পালন করার কথা ছিল। কিন্তু বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এর ভয়ংকর মহামারির কারণে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে শোকের মাস পালন করবে জাতি। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে এই নির্দেশ দিয়েছেন। দলীয়প্রধানের নির্দেশে করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে সারাদেশে শোকাবহ আগস্টের কর্মসূচি পালনের আহবান জানিয়েছে আওয়ামী লীগ।

শোকের মাসে আওয়ামী লীগের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ১৫ আগস্ট সপরিবারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন। ওইদিন স্বাস্থ্যবিধি মেনে সারাদেশে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো এবং ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে চলমান বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি ও ত্রাণ বিতরণ করা হবে। আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল টুঙ্গিপাড়া যাবে। এছাড়া ৫ আগস্ট জাতির পিতার জ্যেষ্ঠপুত্র শেখ কামালের জন্মদিন, ৮ আগস্ট বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের জন্মদিন, ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলা দিবস এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস পালন করবে আওয়ামী লীগ।

একদিকে করোনা মহামারি এবং আরেকদিকে বন্যার কারণে শোকের মাসে জনগণের পাশে দাঁড়াতে নির্দেশ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক হক গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজ এর স্বত্বাধিকারী এবং মানবিক বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান আদম তমিজি হক সাড়া দেশে ত্রান বিতরণ কার্যক্রম অব্যহত রাখবে বলে ব্যক্ত করেছেন।

করোনা আক্রান্ত ও বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের মুখে হাসি ফোটানোই শোকের মাসে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রেষ্ঠ শ্রদ্ধা জানানো হবে বলে মনে করছেন হক গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজ এর স্বত্বাধিকারী এবং মানবিক বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান আদম তমিজি হক। আদম তমিজি হক বলেন,  মুজিববর্ষ হওয়ায় এ বছরটা আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্ব ও তাৎপর্যপূর্ণ। কিন্তু বিশ্বজুড়ে করোনা প্যানাডেমিকের কারণে মানুষের জীবন হুমকির মুখে। বিশ্বে প্রায় সাড়ে ৫ লাখ মানুষ মারা গেছে। স্বাভাবিকভাবে জাতির পিতার শোকের মাসের বৃহৎ কর্মযজ্ঞের সীমিত করা হয়েছে। জাতির পিতা বেঁচে থাকলে এখন করোনা ও বন্যায় মানুষের পাশে দাঁড়াতেন। এটিই তার রাজনীতি, আদর্শ এবং শিক্ষা। দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানোই ছিল তার রাজনৈতিক উদ্দেশ্য। বঙ্গবন্ধু মানুষের জন্যই রাজনীতি করেছেন। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ আমাদের সবার উচিত বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আদর্শ থেকে শিক্ষা নেয়া।  তিনি মানবিক বাংলাদেশের সকল  নেতা-কর্মীদের  করোনা আক্রান্ত ও বন্যাদুর্গতদের পাশে দাড়ানোর  আহ্বান জানান।

আরও পড়ুন