• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর, ২০২০
সর্বশেষ আপডেট : ৩১ অক্টোবর, ২০২০

স্থানীয় বিরোধের বলী হলো বিধবার কুড়েঁঘর

অনলাইন ডেস্ক

সাতকানিয়ায় এক অসহায় বিধবা নারীর ঘর ভেঙ্গে চুরে দিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালী এক রাজনৈতিক নেতা। গত ২৮ অক্টোবর (বুধবার) সন্ধ্যায় সাতকানিয়া উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের মুহুরী পাড়ায় মৃত ছাবের আহমদের বসত ভিটায় এই ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় ওই দিনই সাতকানিয়া থানায় মৃত ছাবের আহমদের স্ত্রী দিলু আরা বাদী হয়ে একই এলাকার যুবলীগ নেতা জেয়াবুল হক লেডুকে প্রধান আসামি করে ১০ জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা যায়- ধর্মপুরের ৯নং ওয়ার্ডের মুহুরী পাড়ার বিধবা দিলু আরা স্থানীয় চেয়ারম্যান ইলিয়াস চৌধুরীর সমর্থক। আর এটাই কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে বিধবার। কারণ দীর্ঘ এক যুগ ধরে জেয়াবুল হক লেডুর সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিলো স্থানীয় চেয়ারম্যানের।

আর সেই বিরোধের বলী হলো বিধবা দিলু আরার বসত ভিটা। লুট করা হয়েছে ঘরের সকল আসবাবপত্র। এমনকি ঘরের চাল পর্যন্ত নিয়ে গেছে বলে জানায় সাতকানিয়া থানায় অভিযোগকারী বিধবা দিলু আরা। তিনি আরও বলেন- আমার চোখের সামনেই লেডু আর তার সাঙ্গপাঙ্গরা এই ভাংচুর ও লুঠপাট চালিয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পুরো লুটপাট ভাংচুরের বিষয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন স্থানীয় যুবলীগ নেতা জেয়াবুল হক লেডু।

অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে সাতকানিয়া থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, এই বিষয়ে একটা অভিযোগ পেয়েছি। এটার বিষয়ে আমি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিবো।

এদিকে অভিযুক্ত জেয়াবুল হক লেডু বলেন, আমি শুনছি ঘর ভেঙ্গেছে। তবে কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে আমি জানিনা। মনে হচ্ছে- স্থানীয় চেয়ারম্যান ইলিয়াস সাহেবের অনুসারীরা ভেঙ্গে আমার নামে বদনাম রটাচ্ছে।

ধর্মপুরের চেয়ারম্যান ইলিয়াস চৌধুরী বলেন, আমার ইউনিয়নে সকল অপকর্ম লেডুই করে থাকেন। এটাও সে করেছে, পুরো ইউনিয়নবাসী সাক্ষী। মিথ্যা বলে কেউ পার পাবেনা।

আরও পড়ুন