• ঢাকা
  • রবিবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২ আগস্ট, ২০২১
সর্বশেষ আপডেট : ২ আগস্ট, ২০২১

‘রাজধানীর ৬৫ শতাংশ নির্মাণাধীন ভবনে এডিসের লার্ভা পাওয়া যায়’

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীর ৬৫ শতাংশ নির্মাণাধীন ভবনে এডিসের লার্ভা পাওয়া যায় বলে অভিযোগ করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।বাকি ২০ শতাংশ লার্ভা ঢাকা ওয়াসার পানির মিটারের নিচে থাকে। বাকিগুলো নগরীর বিভিন্ন বাসাবাড়ি, টায়ার, টিউব, ডাবের খোসা, ফুলের টব ও ছাদ বাগানসহ অন্যান্য স্থানে থাকে বলেও জানান তিনি।

আজ সোমবার (২ আগস্ট) মিরপুর-১ নম্বর এলাকায় ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়াবিরোধী এক অভিযানের সময় তিনি এ কথা বলেন।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, করোনার মধ্যে ডেঙ্গু হানা দিয়েছে। আমি বিভিন্ন এলাকায় যাচ্ছি এবং সেসব এলাকার কাউন্সিলর ও সংসদ সদস্যদের এ অভিযানের সঙ্গে যুক্ত করার চেষ্টা করছি। আমরা প্রতি শনিবার ১০টায় ১০ মিনিট নিজের বাসা নিজ হাতে পরিষ্কার করব।

তিনি বলেন, আমাদের অঞ্চল-২ এ ৮টি ওয়ার্ড রয়েছে। এখান থেকে যাওয়ার পরে প্রত্যেক কাউন্সিলর তার নিজ নিজ এলাকায় কাউন্সেলিং করবেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা দেখেছি নগরীর ৬৫ শতাংশ লার্ভা নির্মাণাধীন ভবনে পাওয়া যাচ্ছে। আর ২০ শতাংশ লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে ওয়াসার যেখানে মিটার রয়েছে সেখানে। বাকি লার্ভাগুলো মানুষের বাসাবাড়িসহ অন্যান্য স্থানে পাওয়া যাচ্ছে।

মেয়র বলেন, মরার উপর খাঁড়ার ঘা ডেঙ্গু। তার থেকে মুক্তির জন্য আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সিটি করপোরেশন থেকে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু কোন বাড়ির ছাদ কিংবা বেলকনিতে যাওয়ার অধিকার আমাদের নেই। আমরা বিভিন্ন জায়গা থেকে ফিরে এসেছি।

তিনি বলেন, গত ২৭ জুলাই থেকে আমরা আবার কাজ শুরু করেছি। এতে ৫০৮টি স্থানে এডিসের লার্ভা পাওয়া গেছে। নিয়মিত মামলা করা হয়েছে ২০টি। জরিমানা করা হয়েছে প্রায় ২০ লাখ টাকা। এ সময় একটি নির্মাণাধীন ভবনে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় ২ এক লাখ টাকা ও অনাদায়ে ৬ মাসের জরিমানা করা হয়।

আরও পড়ুন