• ঢাকা
  • সোমবার, ৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
সর্বশেষ আপডেট : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ঘর পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব

অনলাইন ডেস্ক

ভোলার লালমোহন উপজেলার কালমা ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় উপহারের ঘর পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে এক গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় সেলিম সর্দার নামে স্থানীয় এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই গৃহবধূর বাবা।

ঘটনা তদন্তে পুলিশ কাজ শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকসুদুর রহমান মুরাদ।

তিনি জানান, গত রোববার (০৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ভুক্তভোগী গৃহবধূ ও তার বাবা থানায় এসে অভিযোগ দিয়েছেন। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার (০৬ সেপ্টেম্বর) ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, কালমা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মজিবল হকের ছেলে সেলিম সর্দার এবং ওই গৃহবধূর বাবা একই এলাকার বাসিন্দা। তারা পরস্পর আত্মীয়। গত বুধবার (০১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে সেলিম সর্দারকে ওই গৃহবধূ এলাকার চরলক্ষ্মী শিউলী আবাসনে বসবাসের জন্য একটি ঘর পাইয়ে দেওয়ার জন্য বলেন। এ সময় সেলিম সর্দার ওই গৃহবধূর হাতে থাকা মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে চলে যান। পরে ফেরত দেন। ওই দিন সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূর মোবাইলে কল করে সেলিম সর্দার আবাসনে ঘর দেওয়ার আশ্বাস দেন। বিনিময়ে তার সঙ্গে রাত্রিযাপনের প্রস্তাব দেন। সেলিম সর্দারের প্রস্তাবে রাজি না হলে ওই গৃহবধূকে বিভিন্ন ধরণের ভয় দেখানো হয়।

এ বিষয়ে দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূ বলেন, বছর দুয়েক আগে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে থাকার জন্য একটি ঘর চেয়েছিলাম। তখন থেকে প্রায়ই আমার বাড়িতে এসে সেলিম সর্দার ঘর দেওয়ার প্রলোভন দেখাতো এবং রাতের বেলায় একান্তে কথা বলার জন্য ইঙ্গিত দিত। বুধবার রাতে মোবাইল ফোনে কল করে আবারও কুপ্রস্তাব দেন সেলিম সর্দার। আমি এর বিচার চাই।

অভিযুক্ত সেলিম সর্দার বলেন, আবাসন প্রকল্পের ঘর দেওয়ার সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আর দুই সন্তানের জননীর সঙ্গে একান্ত সময় কাটানোর প্রস্তাব দেওয়ার কথাটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন।

আরও পড়ুন