• ঢাকা
  • রবিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৮ ডিসেম্বর, ২০২১
সর্বশেষ আপডেট : ১৮ ডিসেম্বর, ২০২১

নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য আটকে গেল বিপিএলের পরিকল্পনা

অনলাইন ডেস্ক

কোয়ারেন্টিন জটিলতার কারণে নিউজিল্যান্ড সফর স্থগিত হওয়ার সম্ভাবনা জেগেছিল। যদিও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, সফর বাতিলের সুযোগ নেই। এই সিরিজের কারণে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পরিকল্পনা সম্পন্ন করতে পারছে না বিসিবি।

আগামী ২১ তারিখ নিউজিল্যান্ডে অবস্থানরত বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের করোনা রিপোর্ট হাতে পাবে সংশ্লিষ্টরা। এরপরেই মূলত বোঝা যাবে সেই সিরিজের ভাগ্য। কোয়ারেন্টিন পর্ব বাড়বে নাকি সিরিজের সূচিই পরিবর্তিত হবে, সেটা জানা যাবে তখন।

কোনো কারণে যদি এই টেস্টের সময় সূচি পিছিয়ে যায়, সেক্ষেত্রেও বিপিএল আয়োজন করতে আগ্রহী বিসিবি। এক্ষেত্রে, নিউজিল্যান্ডে অবস্থানরত ক্রিকেটারদের ছাড়াই শুরু হবে বিপিএল। নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ করে তারা দেশে এসে দুই-চারদিন বিশ্রাম নিয়ে বিপিএলে অংশ নেবেন!

এদিকে ফেব্রুয়ারির শেষদিকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ও দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে ঢাকায় আসবে আফগানিস্তান। এই সিরিজের সূচিও চূড়ান্ত হওয়ার পথে। বিপিএল আয়োজনে তাই সময়সীমা খুবই সীমিত বিসিবির।

শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) বিপিএল প্রসঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন বিসিবি সভাপতি পাপন। সভা শেষে বিপিএল প্রসঙ্গে তেমন ইতিবাচক কিছুই জানাতে পারেননি তিনি। যদিও বিপিএল আয়োজনের ব্যাপারে বদ্ধপরিকর বিসিবি। দল বা ভেন্যু কমিয়েও বিপিএল আয়োজন করতে চায় তারা।

পাপন বলেন, ‘বিপিএলটা আমাদের দরকার এই কারণে যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে আমাদের। এখানে স্থানীয় ক্রিকেটারদের চিহ্নিত করা যায়। বলছি না এখানে ভালো করলেই চলে যাবে এমন না কিন্তু আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সহায়তা করে। আমরা মনে করছি এটা করা উচিত। আমরা এটা কিভাবে করতে পারি? কিভাবে করব, কতটুকু সময় পাবো আমরা যে পরিকল্পনা করেছিলাম সেটা অনুযায়ী নাও হতে পারে। আমাদেরকে ওইখানেও কিছু একটা কাটছাঁট করতে হতে পারে। আমি উদাহরণগুলো বলছি। একটা হতে পারে ওইখানে যারা আছে ওদেরকে বাদ দিয়ে বিপিএল চালু হয়ে যাবে।’

‘যারা ওইখানে আছে ওইখান থেকে আসার পরে ওদেরকে ব্রেক দেয়া হবে ২/৪ দিনের। তারপর ওরা যোগ দেবে। বাদ দেয়া বলতে খেলবে না হয়তো কিন্তু ওদের পেমেন্টটা পাবে। আর্থিকভাবে যদি ক্ষতি হয় সেটা আমরা করতে পারি। আমি একটা অপশন বলছি, করব বলিনি। আরেকটা হতে পারে তিনটা ভেন্যুর জন্য আমাদের ৬ দিন ভ্রমণ আছে। হয়তো ভেন্যু একটা কমালে আমরা দুদিন সেফ করতে পারি। এটা করব বলছি না। তৃতীয় হচ্ছে ৬ টার জায়গায় ৫টা দল করলে আমরা আবার ৪-৫ দিন সময় পাই। এগুলো নিয়ে আলাপ আলোচনা হচ্ছে। ২১ তারিখে সিদ্ধান্তটা জানার পরে আপনাদের নির্দিষ্ট করে জানাব।’

বিসিবির প্রাথমিক সূচি অনুযায়ী ২০ জানুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে মাঠে গড়ানোর কথা বিপিএল। এদিকে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ চলবে ৯-১৩ জানুয়ারি।

আরও পড়ুন

  • এক্সক্লুসিভ এর আরও খবর